পুণ্যভূমি বারাণসী
Saptahik Bartaman|10 April 2021
পাহাড়, নদী ও সাগরের সঙ্গে পরিচয় অনেক | দিনের। মাঝেমধ্যে দেখা-সাক্ষাৎও হয়। কিন্তু ইতিহাস বিজড়িত শহরের সঙ্গে পরিচয়টা সেভাবে গড়ে ওঠেনি। সেই পরিচয়পর্বটা সারতে লাগেজ গুছিয়ে বেরিয়ে পড়া বেনারসের উদ্দেশে। বিভূতি এক্সপ্রেসে এক রাত কাটিয়ে পরের দিন সকালে নামলাম বারাণসী স্টেশনে।
মৈত্রেয়ী চট্টোপাধ্যায়

শরতের সকাল। নীল আকাশে ঝকঝকে রােদুরের লুটোপুটি। আমরা দুটো পরিবারের মােট ছ'জন যাত্রী। স্টেশন চত্বরের বাইরে এসে দুটো অটো নিয়ে হােটেলের দিকে রওনা দিলাম। খুবই ঘিঞ্জি আর যানজটে নাকাল এক শহর এই বেনারস। গাড়ি ঘােড়া আর মানুষের ভিড়ে চাপা পড়ে আছে পিচ রাস্তা। দশাশ্বমেধ ঘাট রােডে অবস্থিত হােটেল আগে থেকেই বুক করা ছিল। গােধূলিয়া মােড়ে এসে অটো দাঁড়িয়ে গেল। এর পর আর যানবাহন। প্রবেশের অনুমতি নেই। অগত্যা কাঁধে ব্যাগ ঝুলিয়ে বাকি দু’মিনিটের পথ হেঁটেই পেরলাম।

বহু প্রাচীন ঐতিহ্যমণ্ডিত শহর এই বারাণসী। এমন কোনও বাঙালি আপনি খুঁজে পাবেন না, যিনি বেনারস যাননি। এর আদি নাম ছিল কাশী। নামের সঙ্গেই জড়িয়ে আছে কয়েকশাে বছরের পুরনাে ইতিহাস। বরুণা ও অসি নদীর সঙ্গমস্থলে অবস্থিত বলে বেনারসের নামকরণ করা হয় বারাণসী। এখানকার প্রধান আকর্ষণ হল বিশ্বনাথ মন্দির এবং গঙ্গার ঘাট। আমাদের হােটেল থেকে দুটোই পায়ে হাঁটা দূরত্বে অবস্থিত। দশাশ্বমেধ ঘাট রােডে থাকার এটাই একটা বিরাট সুবিধে।

ভাের সাড়ে তিনটে থেকে মানুষের কোলাহলে একটু একটু করে জেগে ওঠে ঘুমন্ত শহরটা। কেউ ধীর লয়ে করতাল বাজাতে বাজাতে মন্দিরের রাস্তা ধরেছেন। কেউ চাপা গলায় ঠাকুরের নামগানে ভােররাতের বাতাস ভরিয়ে তুলেছেন। কেউ বা আবার গুনগুন সুরে মন্ত্রোচ্চারণ করতে করতে এগিয়ে চলেছেন গঙ্গার ঘাটের দিকে। গলার স্বরের ওঠানামায় মিশে গেছে চলার ছন্দ।

রাতের অন্ধকার মুছে গিয়ে ধীরে ধীরে আলাে ফুটতে শুরু করেছে। হাঁটতে হাঁটতে পৌঁছে গেলাম গঙ্গার ঘাটে। হালকা শীতের আমেজে স্নিগ্ধ নির্মল বাতাস গায়ে মেখে ইতিমধ্যেই বহু মানুষ এসে ভিড় জমিয়েছেন। আশ্বিনের নতুন প্রভাতে নতুন সূর্যের রক্তিম আভা ছড়িয়ে পড়েছে গঙ্গার বুকে। হাঁটুজলে দাঁড়িয়ে সূর্যপ্রণামের মধ্য দিয়ে সূচনা হল একটা নতুন দিনের। বিভিন্ন রাজ্য থেকে আসা নানা ধর্ম ও নানা ভাষাভাষী মানুষের এক মিলনক্ষেত্র এই বারাণসী। বিদেশ থেকেও বহু মানুষ এখানে আসেন।

Continue reading your story on the app

Continue reading your story in the magazine

MORE STORIES FROM SAPTAHIK BARTAMANView All

বরণ

অন্যায়ের প্রতিবাদ, না ঝামেলা এড়িয়ে নিরাপদ জীবন্যাপন? কোনটা বেছে নেবেন আপনি? তিথি কিন্তু বেছে নিয়েছিল প্রতিবাদের পথ। স্টার জলসায় শুরু হওয়া নতুন। ধারাবাহিক ‘বরণ’-এর প্রােটাগনিস্ট তিথি। তার জন্য তাকে দিতে হয়েছে চরম মূল্য। তাতেও দমে যায়নি মেয়ে। সরাসরি প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়েছে তামাম সামাজিক শিষ্টাচারের উদ্দেশ্যে। কী সেই প্রশ্ন ?

1 min read
Saptahik Bartaman
1 May 2021

স্পিকটি নট, কুম্ভমেলা চলছে!

ম্পিকটি নট, কুম্ভমেলা চলছে। গত বছর প্রায় এই সময়েই দিল্লির নিজামুদ্দিনে তবলিগি জামাতের ২৩৬১ জনের ধর্মীয় জমায়েতকে দেশে করােনা সংক্রমণের জন্য দায়ী করে খুব গালমন্দ করা হয়েছিল। মুড়িমিছরির এক দরে আপামর মুসলিম সম্প্রদায়কে কাঠগড়ায় তােলা হয়েছিল। দেশে করােনা পরিস্থিতির জন্য তবলিগি জামাতের সমাবেশকে দায়ী করেছিল নরেন্দ্র মােদির সরকার। কোনও রাখঢাক না-করেই সংসদে লিখিত জবাবে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী জি কিষাণ রেড্ডি বলেছিলেন, সরকারি বিধিনিষেধ অমান্য করেই তবলিগি জামাত সমাবেশ করেছিল। পারস্পরিক দূরত্ব মানা হয়নি। ছিল না মাস্ক স্যানিটাইজারের ব্যবহারও। ২৯ মার্চ ওই জমায়েতে অংশ নেওয়া ২৩৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছিল দিল্লি পুলিস। জামাত প্রধান মৌলানা মহম্মদ সাদের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করেছিল কেন্দ্র। জানা গিয়েছিল, ওই জমায়েতে যােগ দিয়েছিলেন ৩৬টি দেশ থেকে আসা ৯৫৬ জন বিদেশি নাগরিক। তাঁদের বিরুদ্ধে ৫৯টি চার্জশিট জমা দিয়েছিল দিল্লি পুলিস। আমি-আপনি, সবাই বলেছিলাম, ঠিক পদক্ষেপ! টুইটারে, হ্যাশট্যাগ ট্রেন্ড হয়েছিল #CoronaJihad। মােদি সরকারের পেটোয়া সঞ্চালকরা বলেছিলেন ‘Human Bomb'।

1 min read
Saptahik Bartaman
1 May 2021

চতুষ্কোণেই বাজিমাত

গা ছের উপর থেকে নেমে এসেছে চারটি দড়ি। তাতে একজন মানুষের হাত-পা বাধা। স্পাইডারম্যানের ভঙ্গিমায় ঝুলছে, আর পরিত্রাহি চিৎকার করছে। বারবার বলছে আর সে এমন ভুল করবে না। নীচে ততক্ষণে বড় কড়াইতে টগবগ করে তেল ফুটছে। ধীরে ধীরে নেমে আসছে দড়ি। দূরে ততক্ষণে সুখটানে ব্যস্ত বাবলু ভাইয়া। কড়ার প্রায় কাছাকাছি এসে গিয়েছে ঝুলন্ত মানুষটি। তখনও ক্ষমার আর্জি জানিয়ে চলেছে সে৷ জ্বলন্ত সিগারেটে শেষটান দিয়ে দূরে ছুঁড়ে ফেলে দেয় ভাইয়াজি। জ্বলন্ত দৃষ্টিতে তার দিকে তাকায়। বলে, তােমায় দেওয়া এই শাস্তি সকলকে চিরজীবন মনে করাবে বাবলু ভাইয়ার স্ত্রীর দিকে বাজে নজরে তাকালে কী পরিণাম হতে পারে।

1 min read
Saptahik Bartaman
1 May 2021

আলােক বর্তিকা

শঙ্খ ঘােষ কেমন ছিলেন, কত বড় কবি ছিলেন, বলার মতাে আমার কোনও সাহস নেই। অথবা বলতে পারি, ক্ষমতা নেই। খুব সহজ করে বলতে পারি, তিনি আমার বন্ধু ছিলেন। ছিলেন প্রাণের মানুষ। আমার সঙ্গে তাঁর ৪২ বছরের সম্পর্ক। সুখে-দুঃখে, আনন্দে-বিষাদে। আমি তাঁকে রাত এগারােটার সময়ও ফোন করেছি, কোনও একটি বিষয় জানার জন্য। আমার কথা জড়িয়ে যাচ্ছে, তা আমি বুঝতে পেরেও প্রশ্ন করে যাচ্ছি, তিনিও উত্তর দিয়ে যাচ্ছেন। এই হচ্ছে আমার বন্ধু। শঙ্খ ঘােষ। তখন টিভির এক চ্যানেলে ঋতুপর্ণ ঘােষের সিরিয়াল ‘গানের ওপারে’ নিয়মিত দেখতাম। শঙ্খবাবুও তাঁর পরিবার নিয়ে ধারাবাহিকটির দর্শক। সিরিয়ালটি শেষ হলেই, এপার থেকে আমার সঙ্গে তাঁর আলােচনা। হাসি ও গল্প। কোনও কোনও দিন। আমার কান্না। উনি কখনওই বিরক্ত হতেন না। কখনও কখনও কোনও বিষয়ে অনুযােগ করেছি। অভিযােগ। অভিমানের সঙ্গে কথা বলেছি। শঙ্খবাবু শান্ত হয়ে শুনেছেন। কখনও চুপ। কখনও উত্তর দিয়েছেন।

1 min read
Saptahik Bartaman
1 May 2021

রােগহর সূর্য এবং ভিটামিন ডি

কথিত আছে, কৃষ্ণপুত্র শাম্ব অভিশাপের কারণে আক্রান্ত হয়েছিলেন কুষ্ঠ রােগে। তাহলে এখন রােগমুক্ত হওয়ার উপায় কী? বিহিত হল, সূর্যদেবের উপাসনা করতে হবে শাম্বকে তবেই হবে রােগমুক্তি। অভিশাপ প্রকট অসুখের চিহ্ন শরীরে নিয়ে, শাম্ব চন্দ্রভাগা নদী যেখানে সাগরের সঙ্গে মিশেছে, সেই মােহনায় অর্কদেবের আরাধনায়বসলেন। “হে জগঞ্জোতি, হে বিশ্ব-নয়ন, হে সর্বপাপতারণ! তােমার প্রদ্যোতে আমাকে উদ্ধার কর দেব। আমাকে মুক্তি দাও। তপনদেব প্রসন্ন হলেন, শাম্ব রােগমুক্ত হলেন।

1 min read
Saptahik Bartaman
1 May 2021

ক্রুজে ভেসে বারমুডা দ্বীপে

আমার বােন রত্না নিউজার্সিতে থাকে। সেই সব ব্যবস্থা করে রেখেছিল, নিউইয়র্ক থেকে সমুদ্রপথে আট দিনে বারমুডা দ্বীপে ঘুরে আসার। কুইজ’ আমি বললাম। রত্না শুধরে দিল ‘ক্রুজ’! জোগাড়যন্ত্র আগে থেকেই। করা ছিল। আগে থেকে ব্যবস্থা না করলে টিকিট পাওয়া যায় না। জেটি থেকে জাহাজে ঢােকার পর মনে হল ভেতর-বার একাকার। এ যুগে দেশ-দেশান্তর, জল-স্থল, অন্তরীক্ষ যেন কোনও তফাতই নেই। আমাদের কেবিন দশতলা জাহাজের আটতলার উপরে। পায়ের নীচে সাততলা। তারও নীচে পাঁচ হাজার ফুট গভীর জল। দার্জিলিং পর্যন্ত না হলেও কার্সিয়াং ডুবে যাবে। হলেই বা আটতলা জাহাজ, এই চরাচর বিস্তৃত জলে সে তাে মােচার খেলা!

1 min read
Saptahik Bartaman
1 May 2021

আমি কখনওই ভাবিনি যে অভিনেত্রী হব: পাওলি দাম

চ রিত্রটির নাম ‘বাসুকী। রহস্যে | মােড়া এই চরিত্রে অভিনয় করেছেন টলিউড নায়িকা পাওলি দাম। শুভ নববর্ষের সময় জি ফাইভে মুক্তি পেয়েছে ক্রাইম-থ্রিলার ধর্মী হিন্দি ছবি ‘রাত বাকি হ্যায়'। ছবির মূল চরিত্রে পাওলি ছাড়া আছেন অনুপ সােনি, রাহুল দেব সহ আরও অনেকে। এই ছবিটিকে। ঘিরে দারুণ উচ্ছ্বসিত পাওলি। এক টেলিফোন সাক্ষাৎকারে এই ছবিটি নিয়ে পাওলি শােনালেন অনেক কথা।

1 min read
Saptahik Bartaman
1 May 2021

আইপিএলের নতুন তারা

আ ইপিএল নাকি ভারতের ‘ক্রিকেট উৎসব’! তা মানতে অবশ্য আপত্তি নেই। কোটি টাকার লিগ। বিশ্বের সব নামীদামি ক্রিকেটারদের সমাগম। গ্ল্যামারে ভরপুর। তবে এ সবের বাইরেও আলাদা এক গুরুত্বপূর্ণ রয়েছে আইপিএলের। প্রতিভা বিকাশের মঞ্চ হিসেবে। যশপ্রীত বুমরাহ, ভুবনেশ্বর কুমার বা যুজবেন্দ্র চাহাল, রবীন্দ্র জাদেজার মতাে অনেক নামী ক্রিকেটারের আবির্ভাব ঘটেছে এই টুর্নামেন্ট থেকে। প্রতিবছর বেশ কিছু নতুন প্রতিভা আইপিএলে নজর কেড়ে জাতীয় দলের ঢােকার সম্ভাবনা জাগায়। এবারও তার ব্যতিক্রম হচ্ছে না। ইতিমধ্যে বেশ কিছু তরুণ তুর্কি নিজেদের জাত চিনিয়েছেন। যেমন হার্শল প্যাটেল, চেতন। সাকারিয়া, অর্শদীপ সিং ও আবেশ খান। তারকাদের ভিড়েও আলাে কেড়েছেন।

1 min read
Saptahik Bartaman
1 May 2021

অ্যাথলেটিকসের আতুড়ঘর

শহরের বিভিন্ন জায়গায় ব্যাঙের ছাতার মতাে গজিয়ে ওঠা ক্রিকেট কোচিং সেন্টারের মতােই পরিবেশ। সন্তানরা প্র্যাকটিস করছে। আর মা-বাবারা বাইরে বসে গল্প করছেন। সােদপুর স্টেশন থেকে বড়জোর এক কিলােমিটার। দূরত্ব। মাঠের ভিতর প্রবেশ করার পর ভুল ভাঙল। আরে এ তাে ক্রিকেট নয়, অ্যাথলেটিকস ট্রেনিং সেন্টার! পিছিয়ে পড়া এই খেলাকে নিয়ে অভিভাবকদের এতটা উৎসাহ থাকতে পারে! তাও আবার অর্থ ও গ্ল্যামার সর্বস্ব ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট-ফুটবল লিগের যুগে! সােদপুর অ্যাথলেটিক্স কোচিং ক্যাম্প। যাকে সারা দেশ চেনে ‘সােদপুর এসিসি’ নামেই। উত্তর ২৪ পরগনার এই অঞ্চলে না এলে বােঝা যাবে না, অ্যাথলেটিকসও পারে জনপ্রিয়তার তুঙ্গে পৌঁছতে।

1 min read
Saptahik Bartaman
1 May 2021

হাম্পির স্থাপত্য-ভাস্কর্য

একটি প্রচলিত কথা আছে, গঙ্গানদীতে অবগাহন করলে যে পুণ্য হয়, নর্মদা দর্শন এবং তুঙ্গভদ্রা নদীর জল পান করলে সেই একই পুণ্য হয়। শাস্ত্র অনুসারে। দক্ষিণ ভারতের এই তুঙ্গভদ্রা নদীর জল পীযূষতুল্য মৃতসঞ্জীবন। কিন্তু গঙ্গা-নর্দার পরিচয় কিছুটা জানা থাকলেও তুঙ্গভদ্রার কিংবদন্তিময় উৎপত্তির ইতিহাস অনেকটাই অজানা। পুরাণ মতে দক্ষযজ্ঞের পরে সতী দেহত্যাগ করে আবার জন্মগ্রহণ করেন ব্রহ্মার কন্যা রূপে। নাম হয় পম্পা। কেউ কেউ আবার বলেন পম্পা দেবী নয় সে এক আদিবাসী কন্যা। যাই হােক, যৌবনে পৌঁছে ঘাের তপস্যার পর শিবকে পতি রূপে লাভ করেন। পম্পা। তাঁদের বিবাহ হয় যেখানে তার নাম হয় পম্পাক্ষেত্র। সংস্কৃত পম্পে শব্দই কন্নড়ে রূপান্তরিত হয়ে হাম্পে শব্দের সৃষ্টি হয়। ইংরেজিতে হাম্পে বদলে হয় হাম্পি। রামায়ণে উল্লেখিত ঋষিমুখ, হেমকূট, অঞ্জনাদ্রী এবং গন্ধমাদন পর্বতে ঘেরা এই জায়গাকেই আমরা চিনি বালি ও সুগ্রীবের রাজধানী কিষ্কিন্ধ্যা নামে। তবে পুরাণের পাশাপাশি বর্তমান হাম্পির আকর্ষণও কিছু কম নয়। আর সেই সব কারণ মিলিয়ে দেশ-বিদেশের পর্যটকের কাছে ক্রমশ জনপ্রিয় হয়ে উঠছে হাম্পি।

1 min read
Saptahik Bartaman
24 April 2021