মহাজাতির স্বপ্ন ও সুভাষচন্দ্র
Desh|January 17, 2022
কংগ্রেসের ভিতরে গণতন্ত্র দাবি করার মূল্য দিতে হল সুভাষচন্দ্রকে। ১৯৩৯ সালের অগস্ট থেকে শুরু করে তিন বছরের জন্য Congress High Command সুভাষচন্দ্রের কোনও নির্বাচনী আসন গ্রহণ নিষিদ্ধ করে দিল। ভাইয়ের পাশে দাঁড়ানাের অপরাধে শরৎচন্দ্র বসুর উদ্দেশেও ধাবিত হল শৃঙ্খলাভঙ্গের শাস্তি।
সু গ ত ব সু

১৯ অগস্ট ১৯৩৯ বা ২ ভাদ্র ১৩৪৬ তারিখে কলকাতা শহরে একটি ঐতিহাসিক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছিল। সেদিনের কথা আমি প্রথম শুনি আমার বাবা শিশিরকুমার বসুর কাছে। ইতিহাসের সাক্ষী হিসেবে শিশিরকুমার বসু বেশ কিছু ছবি তুলেছিলেন। উনিশ বছর বয়সে তাঁর এই অভিজ্ঞতা সম্বন্ধে বসুবাড়ি বইয়ে তিনি লিখেছেন: “মণ্ডপের ভিতরে আলাে কম, ফ্ল্যাশ না হলে তাে আমার ক্যামেরায়। ছবি উঠবে না। আমাদের বন্ধু আনন্দবাজারের ফোটোগ্রাফার ধীরেন সিংহকে বললাম, আপনি ফ্ল্যাশ দেবার ঠিক আগে আমাকে ইশারা করবেন, আমি সেই সময় ক্যামেরার শাটার খুলে দেব। ধীরেনবাবুর ফ্ল্যাশে আমার ক্যামেরায় এইভাবে কয়েকটি ঐতিহাসিক ছবি উঠে গেল।”

মঞ্চে পাশাপাশি দুটি চেয়ারে বসেছিলেন রবীন্দ্রনাথ ও সুভাষচন্দ্র— তাঁদের মাঝখানে মাটিতে উপবিষ্ট সুভাষচন্দ্রের প্রিয় মেজদাদা শরৎচন্দ্র বসু। তিনিই যেন বিশ্বকবি ও দেশনায়কের মধ্যে সেতুবন্ধন। পিছনের সারিতে দাঁড়িয়ে যে-ক’জন, তাঁদের মধ্যে দেখতে পাই হুমায়ুন কবীর ও আশরাফুদ্দীন আহমেদ চৌধুরী।

এটি ছিল রবীন্দ্রনাথের নামাঙ্কিত ‘মহাজাতি সদনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠান। কিন্তু কেন এই নাম? রবীন্দ্রনাথ দেশপ্রেমিক ছিলেন, সাধারণ অর্থে আমরা জাতীয়তাবাদী বলতে যা বুঝি, তা ছিলেন না। বিভিন্ন ‘ism-এর মতাে ‘nationalism সম্বন্ধেও তিনি ছিলেন সন্দিহান। মহাজাতি’ বলতে তিনি কী বােঝেন তার সুন্দর বিশ্লেষণ রয়েছে বিশ্বকবির অভিভাষণে। তিনি বললেন– “আজ এই মহাজাতি সদনে আমরা বাংলাজাতির যে শক্তির প্রতিষ্ঠা করবার সংকল্প করেছি তা সেই রাষ্ট্রশক্তি নয়, যে শক্তি শত্রু মিত্র সকলের প্রতি সংশয় কণ্টকিত।” মহাজাতি কী নয় তা প্রথমে পরিষ্কার করে দিলেন। তার পরেই বিবৃত মহাজাতি কী তার অপূর্ব বর্ণনা— “জাগ্রত চিত্তকে আহ্বান করি, যার সংস্কারমুক্ত উদার আতিথ্যে মনুষ্যত্বের সর্বাঙ্গীন মুক্তি অকৃত্রিম সত্যতা লাভ করে। বীর্য এবং সৌন্দর্য, কর্মসিদ্ধিমতী সাধনা এবং সৃষ্টিশক্তিমতী কল্পনা, জ্ঞানের তপস্যা এবং জনসেবার আত্মনিবেদন, এখানে নিয়ে আসুক আপন আপন বিচিত্র দান।” মহাজাতির এই ধারণাটিকে আধুনিকতার আলােয়, পূর্ণ মর্যাদা সহকারে প্রতিষ্ঠা করলেন রবীন্দ্রনাথ।

রবীন্দ্রনাথকে ‘বিশ্বকবি’ বলে উল্লেখ করে সুভাষচন্দ্র তাঁকে এই জাতির যজ্ঞে পৌরােহিত্যের পদে’ আহ্বান করেন। সুভাষচন্দ্র কখনওই সংকীর্ণ জাতীয়তাবাদী ছিলেন না। তাঁর অভিভাষণে সুভাষচন্দ্র বলেন— “এই ভূমিতেই সেই আন্দোলনের জন্ম হয়েছিল যার দ্বারা আমাদের ধর্ম ও কৃষ্টি, সংস্কারের মধ্য দিয়ে পুনর্জীবন লাভ করেছে। এই আন্দোলন প্রাদেশিকতার গণ্ডী মানেনি—এমনকি জাতীয়তার গণ্ডীও অতিক্রম করেছিল। রামমােহন ও রামকৃষ্ণ যে বাণী দিয়েছিলেন— তা কি বিশ্বমানবের জন্য নয়?”

সুভাষচন্দ্রের লেখাপত্রে আমরা রবীন্দ্রনাথের প্রথম উল্লেখ পাই ১৭ সেপ্টেম্বর ১৯১২-তে লন্ডনে মেজদাদাকে লেখা একটি চিঠিতে। সুভাষের মাত্র পনেরাে বছর বয়স, কবির নােবেল পুরস্কার পেতে তখনও এক বছর বাকি, গর্বে ও দুঃখে সুভাষ লিখছেন— “You will there perhaps hear and read a good deal about the Bengali poet and venerable sage, Rabindranath Tagore. We feel so proud to read of him and the high honour shown to him by an alien people that for the time we become optimistic about the future of Bengal and of India. I am almost stung with selfreproach when I think how indifferent Bengal has been in showering laurels upon him and has suffered his genius, super-human though it is, to lie in the shade of neglect, whereas a foreign people, speaking an alien tongue and cherishing ideas and sentiments, diametrically opposed to ours in some cases, have lifted him up from this shade to sunshine and have extolled him as the greatest poet the world has produced."

এর দু’বছর পর ১৯১৪ সালে প্রেসিডেন্সি কলেজের ছাত্র সুভাষ রবীন্দ্রনাথের সঙ্গে দেখা করে তাঁর পল্লিগঠন কাজ বিষয়ে শুনলেন, কীভাবে একটি উৎকৃষ্ট মানের বিদ্যাচর্চার প্রতিষ্ঠান তৈরি করা সম্ভব, তা নিয়ে কবির সঙ্গে আলােচনা করলেন।

১৯২১ সালে সুভাষ ICS থেকে পদত্যাগের পরে রবীন্দ্রনাথ ও সুভাষচন্দ্র একই জাহাজে ইউরােপ থেকে ভারতে ফিরেছিলেন। যাত্রাপথে বিশ্বকবি ও দেশপ্রেমিক একত্র বসে কংগ্রেসের অসহযােগ নীতি আলােচনা করেছিলেন। ১৯০৫ থেকে ১৯০৮ সালের স্বদেশি আন্দোলনের পর রবীন্দ্রনাথ আর জাতীয় রাজনীতিতে সক্রিয়ভাবে যুক্ত হননি। সে সময় তিনি দেখেছিলেন, কীভাবে কোনও বিকল্প পথের অভাবে শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানের বয়কট নীতিতে যুবসমাজের এক বিরাট অংশের ভবিষ্যৎ নষ্ট হয়ে যায়। এইভাবে আর কোনও প্রজন্মের ভবিষ্যৎ যাতে অন্ধকার না হয়, সেটাই চেয়েছিলেন তিনি। রবীন্দ্রনাথের সঙ্গে কথা বলে সুভাষচন্দ্রের মনে হয়েছিল— “কীভাবে আরও গঠনমূলক কাজের দিকে মন দেওয়া যায়, সেটাই তাঁর উদ্বেগের জায়গা।” ভারতে আসার পর রবীন্দ্রনাথ দেখলেন আধুনিক বিজ্ঞানের বিরােধী মহাত্মা গাঁধীর ব্যক্তিগত মনােভাব রাজনৈতিক আন্দোলনের উপর প্রভাব বিস্তার করছে। সুভাষচন্দ্রের মনে হয়েছিল, এরই উত্তরে রবীন্দ্রনাথ সে সময়ে কলকাতায় শিক্ষার মিলন’ নামে বিখ্যাত বক্তৃতাটি দেন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বয়কটনীতির বিষয়ে কবি তাঁর গভীর হতাশা প্রকাশ করে বলেন যে, তাঁর মতে এই নীতি বিশ্বদুনিয়াময় ভাবনাচিন্তার আদানপ্রদান থেকে ভারতকে বিচ্ছিন্ন করে দিচ্ছে।

Continue reading your story on the app

Continue reading your story in the magazine

MORE STORIES FROM DESHView All

দক্ষতার স্বীকৃতি আসুক, আনুগত্যের নয়

নিরপেক্ষ, সমদৃষ্টি এবং দূরদৃষ্টিসম্পন্ন, শিরদাঁড়াসােজা মানুষজনকে এগিয়ে এসে হাল ধরতে হবে।

1 min read
Desh
April 17, 2022

আর আর আর : রাজামৌলীর ‘নবরামায়ণ :

দর্শকের সামনের রুপােলি পর্দা কোন এক অলীক জাদুতে রূপান্তরিত হয় ব্যাপ্ত ক্যানভ্যাসে, রচিত হতে থাকে শিল্পসুষমাময় এক একটি আশ্চর্য ফ্রেম।

1 min read
Desh
April 17, 2022

মাথা উঁচু রাখাই নিয়ম ।

বিচ্ছিন্নভাবে কেউ কেউ প্রতিবাদ জানালেও সার্বিক নৈঃশব্দ্যই যেন নিয়মে পরিণত হয়েছে। এই নৈঃশব্দ্য একদিকে যেমন বিভিন্ন গণমাধ্যমে সমালােচিত হচ্ছে, অন্যদিকে জনমানসে বাংলার বুদ্ধিজীবীদের নিয়ে অবিশ্বাসের জন্ম দিচ্ছে।

1 min read
Desh
April 17, 2022

স্বপ্নবিলাসীর আত্মকথন

আলােচ্য বইটি কেবল এক বিন্দু-পরিক্রমা নয়, বরং এক লম্বা রেসিং ট্র্যাক, যে-পথে দৌড় শুরু হয়ে গিয়েছে কৈশাের থেকেই।

1 min read
Desh
April 02, 2022

সময় যখন সম্পাদক

এক গড়পড়তা সাহিত্য-শিল্পের নিশ্চিত আরামে কেন আজ আবদ্ধ হয়ে পড়ছে সৃজনশীলতা?

1 min read
Desh
April 02, 2022

মহা-ইন্দ্র মহেন্দ্র স্বামী সুবী রা নন্দ

একদিন মহাপুরুষ মহারাজ ঠাকুরের কথাগুলাে লিখে রাখছেন। ওটা ঠাকুরের নজরে আসায় ঠাকুর তারককে বলেছিলেন– “ওটা তাের কাজ নয়, ওটার জন্য অন্য লােক আছে।” ওই অন্য লােকটিই হচ্ছেন আমাদের পূজনীয় ‘মাস্টারমশায়।

1 min read
Desh
April 02, 2022

ব্রহ্মবাসী বাঙালির সাহিত্য ও প্রগতি পত্রিকা

বাংলা সাহিত্যের ‘ইতিহাস’ নয়, বলা উচিত ‘ইতিহাসগুলি”। মায়ানমার সে ইতিহাসমালায় এক উল্লেখ্য ছাপ রেখে গেছে।

1 min read
Desh
March 17, 2022

তীক্ষ ও গভীর, দুই ভাষ্য

যন্ত্রণার, বঞ্চনার দুই প্রান্তজীবনের কথা। এবং তা থেকে উত্তরণ— অমিতাভ বচ্চন ও আলিয়া ভট্ট অভিনীত দুটি সাম্প্রতিক চলচ্চিত্রের আলােচনা।

1 min read
Desh
March 17, 2022

কে তুমি পড়িছ বসি অ নি বা ণ চট্টো পা ধ্যা য়

বছর কুড়ি আগে আনন্দবাজার পত্রিকা নিজেকে নিয়ে একটি সমীক্ষা করিয়েছিল, এ-কালে যেমনটা দস্তুর। পাঠকদের একাংশের কাছে সেই সমীক্ষার অন্যতম প্রশ্ন ছিল: এই পত্রিকাকে যদি এক জন ব্যক্তি হিসেবে কল্পনা করতে বলা হয়, তিনি কোন ব্যক্তির কথা ভাববেন?

1 min read
Desh
March 17, 2022

বিচ্ছেদাত্মক কাব্য-নাট্যভাবনা

ভারতীয় ভাবনায় ‘ট্র্যাজেডির চেতনা যে কতটা ছিল, সেটা লেখক রসশাস্ত্রের সূক্ষ্মাতিসুক্ষ্ম ভাবনার মাধ্যমে বিস্তারিতভাবে প্রকট করে তুলেছেন।

1 min read
Desh
March 17, 2022
RELATED STORIES

TRIPLE PLAY

CARRYING THESE 3 TYPES OF KNIVES IS A WINNING COMBINATION

6 mins read
American Outdoor Guide
May 2022

DIVER DOWN

5 GREAT AMERICAN SNORKELING SPOTS

6 mins read
American Outdoor Guide
May 2022

EASY CARRY

THIS NEW SLING PACK FROM ALPS OUTDOORZ DOES MORE THAN TALK TURKEY

5 mins read
American Outdoor Guide
May 2022

SCREAMING FOR ATTENTION

PACK WHAT YOU'LL NEED TO SIGNAL FOR HELP IF YOU GET LOST OR INJURED

7 mins read
American Outdoor Guide
May 2022

BUSHCRAFT BEDS

GET OFF THE GROUND AND INTO COMFORT WITH THESE DIY WILDERNESS BEDS

5 mins read
American Outdoor Guide
May 2022

Bet On It

A Silicon Valley-backed startup wants to bring Wall Street-style trading to the outcome of events. Some regulators say that’s a terrible idea

10+ mins read
Bloomberg Businessweek
May 30 - June 06, 2022 (Double Issue)

Killer Heat Is Here

The record temperatures ravaging India are a warning of global catastrophes to come

4 mins read
Bloomberg Businessweek
May 30 - June 06, 2022 (Double Issue)

Opening the Spigot

Conservatives want to limit social media companies’ power to control content

5 mins read
Bloomberg Businessweek
May 30 - June 06, 2022 (Double Issue)

Expanding Access to Mind Expansion

Companies offer guided drug trips on jungle retreats, at city clinics, and in your living room

4 mins read
Bloomberg Businessweek
May 30 - June 06, 2022 (Double Issue)

Europe's Travel Rebound Wobbles

A staffing crisis at airlines, airports, and even the Chunnel left some operators overwhelmed

4 mins read
Bloomberg Businessweek
May 30 - June 06, 2022 (Double Issue)