নটী বিনােদিনীর চরিত্রে অভিনয় করতে চাই
Grihshobha - Bangla|July 2020
নটী বিনােদিনীর চরিত্রে অভিনয় করতে চাই
টানা টানা চোখ আর ক্লাসিক সৌন্দর্যের জন্য নজর কেড়েছেন তিনি। রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের কন্যা হওয়া সত্ত্বেও অভিনয় আর নাচ দুটি ফর্ম-এ নিজেকে সফল প্রমাণ করতে তিনি বদ্ধপরিকর। দেবলীনা কুমারের সঙ্গে কথােপকথনে অবন্তী সিনহা শুক্লা।

টালিগঞ্জ-এ তাঁর আসাটা শিবপ্রসাদ মুখােপাধ্যায়ের হাত ধরে। ইতিমধ্যেই বেশ কিছু ছবিতে কাজও করে ফেলেছেন তিনি। ‘চল কুন্তল’ বা ‘হামি’ ছবিতে যথেষ্ট প্রশংশিত হয়েছে তাঁর কাজ। কিন্তু রাতারাতি তাঁকে বিখ্যাত করেছে গােত্র ছবির ‘রঙ্গবতী'। দেবলীনা কুমারের নানা কথা জেনে নেওয়া গেল, তাঁর সঙ্গে এক অন্তরঙ্গ আড্ডায়।

‘রঙ্গবতী রঙ্গবতী’ তাে সােশ্যাল মিডিয়ায় দারুণ হিট। একডাকে ‘রঙ্গবতী’-কে সকলে এখন চেনে৷ কী বলবেন এই জনপ্রিয়তার ব্যাপারে ?

সােশ্যাল মিডিয়ার সত্যিই সেই শক্তি আছে রাতারাতি কাউকে বিখ্যাত করে দেওয়ার। আমি খুব খুশি যে রঙ্গবতী এরকম হিট!

নানা সময়ে আপনি বলেছেন নাচ আপনার ধ্যানজ্ঞান। সেটাই কি আপনাকে অভিনয়ের ক্ষেত্রে নিয়ে এল ?

হা নাচ আমি খুব ছােটোবেলা থেকে শিখেছি। একদম ছােটোতে ভরতনাট্যম শিখতাম অর্কদেব ভট্টাচার্যর কাছে। তারপর কিছুদিন ওডিশিও শিখেছিলাম সুতপা তালুকদারের কাছে। কিন্তু বেসিকালি মণিপুরি নিয়েই আমার মাস্টার ডিগ্রি । কলাবতী দেবীর ছাত্রী আমি, ওঁর কাছেই শিখেছি প্রায় ১০-১১ বছর । নাচই আমার মধ্যে ফাইন আর্টস এর প্রতি আগ্রহটা তৈরি করে ।

আমাকে স্টেজে দেখে অনেকেই বলেছেন, আমি ভালাে এক্সপ্রেস করতে পারি, ভালাে ইমােট করতে পারি। সেটাই আমায় সাহস জুগিয়েছিল অভিনয়ে আসার। কলেজে আসার পর মনে হয়েছিল নতুন কিছু করে দেখাই যাক না। আমাদের বাড়িটা যদিও ভীষণই কনভেনশনাল, যেখানে শুধু পড়াশােনাকেই সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হয়। তাই অভিনয় শেখার বা সেভাবে প্রস্তুতি নেওয়ার সুযােগ তেমন হয়নি।

প্রথমবার অভিনয়ের সুযােগটা কীভাবে হয়েছিল?

আসলে আমার বাবা দেবাশিস কুমারের সঙ্গে অনেকেরই পরিচয় আছে ইন্ডাস্ট্রির। কিন্তু উনি কোনও দিনই আমায় কারও সঙ্গে আলাপ করিয়ে দেননি। কেবল একবার শিবপ্রসাদ মুখােপাধ্যায় যখন বাড়িতে এসেছিলেন, তখন তার সঙ্গে আলাপ হওয়ায় উনি রামধনু’ ছবিটার প্রিমিয়ারে যাওয়ার জন্য ইনভাইট করেন। সেখানে দেখা হওয়ায় আমি কথায় কথায় জানিয়েছিলাম যে, আমার অভিনয়ে ইন্টারেস্ট আছে। তারও প্রায় ২-৩ বছর পর উনি আমায় ওঁর শর্টফিল্ম ‘জয়ী’- কাস্ট করেন। ওটাই আমার প্রথম কাজ, ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত যেখানে আমার টিচার-এর ভূমিকায় ছিলেন।

প্রথম কাজেই ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তর মতাে একজন জনপ্রিয় অভিনেত্রীর সঙ্গে অভিনয় করার ক্ষেত্রে চাপ কতটা ছিল?

articleRead

You can read up to 3 premium stories before you subscribe to Magzter GOLD

Log in, if you are already a subscriber

GoldLogo

Get unlimited access to thousands of curated premium stories, newspapers and 5,000+ magazines

READ THE ENTIRE ISSUE

July 2020