প্রেগন্যান্সি এবং মেডিকেল গাইডলাইন
Grihshobha - Bangla|July 2020
প্রেগন্যান্সি এবং মেডিকেল গাইডলাইন
উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণের মাধ্যমে হবু-মা এবং তার গর্ভস্থ সন্তানকে সুস্থ ও স্বাভাবিক রাখা জরুরি। এ বিষয়ে ডা. সাগরিকা বসু-র দেওয়া প্রপার গাইডলাইন তুলে ধরছেন সুরঞ্জন দে।

নানারকম আবেগ, উদ্বেগ কাজ করে মাতৃত্বকালীন সময়ে। বিশেষ করে এই কোভিড ১৯-এর আবহে উদ্বেগ এবং আশঙ্কা আরও বেড়েছে। ভাইরাসের সংক্রমণ যাতে না ঘটে তার জন্য কী কী সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত কিংবা সংক্রমণ ঘটলে কী ব্যবস্থা নেওয়া আবশ্যক, পরিবারের লােকজন-ই বা কীভাবে পাশে দাঁড়াবেন, কীভাবে নিরাপদে সুস্থ সন্তানের জন্ম দিয়ে মা-ও সুস্থ থাকবেন, সেই বিষয়ে উপযুক্ত পরামর্শ দিয়েছেন ডা, সাগরিকা বসু

গর্ভধারণের পর প্রাথমিক কর্তব্য কী?

আমার মতে, মেডিকেল গাইডলাইন মানা উচিত গর্ভধারণের আগে থেকেই। পরিবার পরিকল্পনার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর স্বামী-স্ত্রী উভয়েরই সাধারণ স্বাস্থ্য-পরীক্ষা করা উচিত কোনও বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের সাহায্য নিয়ে। কারণ, সুস্থ-স্বভাবিক সন্তানের বাবা-মা হতে গেলে, স্বামী এবং স্ত্রী উভয়কেই শারীরিক ভাবে সুস্থ-সবল থাকতে হবে। এর জন্য, স্বাস্থ্য ও স্বাভাবিকতার ক্ষেত্রে যদি কোনও সমস্যা কিংবা ঘাটতি থাকে, তা দূর করা উচিত উপযুক্ত চিকিৎসার মাধ্যমে। এরপর যখন গর্ভধারণ নিশ্চিত হবে, তখন থেকেই কোনও স্ত্রী এবং প্রসূতি-রােগ বিশেষজ্ঞের অধীনে থেকে, তার গাইডলাইন মেনে চলা উচিত৷

এ ক্ষেত্রে মনে রাখা দরকার, গর্ভাবস্থা থেকে প্রসব পর্যন্ত একই চিকিৎসকের অধীনে থাকা আবশ্যক এবং সুবিধেজনক। কারণ, প্রথম থেকে হবু-মায়ের ভালাে-মন্দ সবটাই একই চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে থাকলে, তিনি জরুরি অবস্থায়ও দ্রুত সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়ে উপযুক্ত চিকিৎসা পরিষেবা দিতে পারবেন।

articleRead

You can read up to 3 premium stories before you subscribe to Magzter GOLD

Log in, if you are already a subscriber

GoldLogo

Get unlimited access to thousands of curated premium stories, newspapers and 5,000+ magazines

READ THE ENTIRE ISSUE

July 2020