কোর্টে যাওয়া হল না, হয়ে গেলাম অভিনেত্রী

Grihshobha - Bangla|June 2020

কোর্টে যাওয়া হল না, হয়ে গেলাম অভিনেত্রী
লাবণ্যে ভরা মুখ আর স্বতঃস্ফূর্ত অভিনয়, এই দুটোই তার প্লাস পয়েন্ট। অনেকেরই এখন প্রিয় অভিনেত্রী হয়ে উঠেছেন ইশা সাহা। তার নানা কথা শুনলেন অবন্তী সিনহা শুক্লা।

প্রজাপতি বিস্কুট-এর ‘শাওন’ থেকে সােয়েটার-এর ‘টুকু’ – এই কন্যাকে হঠাৎই ভালােবেসে ফেলেছেন বাংলা ছবির দর্শকরা। বেশ কয়েকটি ছবি এবং ওয়েব সিরিজে, ইশা সাহা এখন খুবই জনপ্রিয় মুখ। নেক্সট ডাের গার্ল-এর সাফল্য আর বাঙালি মেয়ের লাবণ্য নিয়ে মন কেড়েছেন সবার। লকডাউন-এর পরিস্থিতিতে টেলিফোনে আডডা দিলেন ইশা। শেয়ার করলেন নানা কথা।

পড়ছিলেন আইন, সেখান থেকে একেবারে সিরিয়ালে অভিনয়। এই ঘটনাটা ঘটল কী করে?

ঘটনাটা একটু অদ্ভুত-ই৷ অন্তত আমার ক্ষেত্রে। কারণ আমার পরিবারে লইয়ার-ও কেউ নেই আবার অ্যাক্টরও কেউ নেই। ২০১৫-তে কলেজের ফাইনাল ইয়ার হয়ে যাওয়ার পর, মনে হয়েছিল পার্টটাইম কিছু কাজ করি। সেই হিসেবে একটা ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানিতে জয়েন করি। সম্ভবত একটা ইভেন্ট-এ, কোনও একটি চ্যানেলের একজন পদস্থ আধিকারিকের সঙ্গে আমার দেখা হয়। তিনি আমায় কিছু ছবি পাঠাতে বলেন। এর কিছুদিন পর, আমার হঠাৎ অডিশন-এর ডাক পড়ে। অডিশন কী জিনিস তখন সেটাই জানতাম না। আমায় বলা হয়েছিল, ওটা কঠিন কিছু নয়, একটা স্ক্রিপ্ট দেওয়া হবে, সেটা অনুযায়ী পারফর্ম করতে হবে। বলাইবাহুল্য খুব খারাপ অডিশন দিয়েছিলাম। কিন্তু আমায় অবাক করে দিয়ে হঠাৎ একদিন ফোন এল। আমি সিলেক্টেড। বাবা বললেন, কী দরকার বেশ তাে পড়াশােনা করছ। আমি বললাম, সেই তাে কোর্টেই যাব একমাস পরে,একটু দেখে নিই না। এরপর ওয়ার্কশপ এবং শেষ পর্যন্ত আমার প্রথম সিরিয়ালে অভিনয়, আঁঝ লবঙ্গফুল। একটু দেখি, একটু দেখি করতে করতে আমার আর কোর্টে যাওয়া হল না, হয়ে গেলাম অভিনেত্রী।

প্রথম দিন ক্যামেরা ফেস করার অভিজ্ঞতা কেমন ছিল?

সমস্ত ফিলিংস যেন বন্ধ হয়ে যায় ওই মুহূর্তটা-তে (হাসি)। সিরিয়াসলি! যারা কোনও দিন ক্যামেরা ফেস করেনি, তাদের জন্য দুম করে ক্যামেরা ফেস করাটা সত্যি খুব ডিফিকাল্ট কাজ। বড়াে ইউনিট, চারপাশে লােকজন, কো-অ্যাক্টরস, ডায়লগ বলার প্রেশার, আলাে নেওয়ার প্রেশার—সব মিলিয়ে একটা অদ্ভুত অনুভূতি। তবে কী, ওই যে নার্ভাসনেস, ওটাই একটা সময় গিয়ে জেদটাও বাড়িয়ে দিয়েছিল হয়তাে। মনে হয়েছিল, পারতেই হবে আমায়। আমার মনে আছে, শুটিং চলাকালীনও, আমার ডায়ালগ বলতে বলতে রান্না করতে হতাে। ওই সিনগুলােতে, কিছুতেই আমি দুটো কাজ একসঙ্গে করতে পারতাম না।

articleRead

You can read up to 3 premium stories before you subscribe to Magzter GOLD

Log in, if you are already a subscriber

GoldLogo

Get unlimited access to thousands of curated premium stories and 5,000+ magazines

READ THE ENTIRE ISSUE

June 2020