দেশ দুনিয়ার ভালােবাসা

Saptahik Bartaman|February 22, 2020

দেশ দুনিয়ার ভালােবাসা
জীবনসঙ্গী খুঁজে নেবার কালে নামানুষী জগতে কেউ কুহু। কুহু ডাক দেয়।

কেউ মায়াময় পেখম তুলে ঝলমল করে ওঠে। মৌমাছি নাচ দেখায়। মাকড়শা মাছি ধরে। সঙ্গিনীকে উপহার দিয়ে মন পাবার চেষ্টা করে। পেঙ্গুইন নুড়ি কুড়িয়ে ঢিপির বাড়ি বানিয়ে সঙ্গিনীকে মুগ্ধ করার চেষ্টা করে। প্রশ্ন উঠতে পারে এক্ষেত্রে মানব-মানবী কীভাবে নিজের ইচ্ছেটুকু জানিয়ে আসছে? সত্যি কথা বলতে কী ভাষার মাধ্যমে অথবা। কোনও ইশারাই এক্ষেত্রে যথেষ্ট। তবে প্রকাশভঙ্গি দেশকাল ভেদে বিভিন্ন রকমের হয়ে থাকে। মনের গােপন কথাটি একদিন না। একদিন আর গােপন থাকে না।

হল্যান্ডে রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাবার সময় যদি কোনও বাড়ির জানালায় একগুচ্ছ গােলাপ দেখতে পাওয়া যায়, তাহলে বুঝতে হবে, এ বাড়ির মেয়েটি আপনার সম্মতির অপেক্ষায় আছে। ব্রিটেনে কোনও কন্যা যদি সবুজ রঙের পােশাক পরে, তাহলে ধরে নিতে হবে সে প্রেম বা বিয়ের ব্যাপারটা ভেবে দেখতে পারে। হলুদ রঙের পােশাক পরলে ধরতে হবে নিমরাজি। সঙ্গিনীকে। মনে ধরলে বলাই যেতে পারে ‘আই লাভ ইউ। তবে লাল রঙের পােশাক পরে যারা ‘রেড সিগন্যাল দেখায় সেখান থেকে সরে পরাই বুদ্ধিমানের কাজ। মেক্সিকোতে পছন্দের সঙ্গিনীর বাড়ির সামনে বাদ্যযন্ত্রের সুরেলা সুর বাজিয়ে লক্ষ রাখতে হয়, সে বাড়ির মেয়েটি তা গ্রহণ করেছে কি না। দরজা বা জানালা না খুললে, সম্ভাষণ না করলে বুঝতে হবে, সারারাত বাজালেও কোনও কাজ হবে না ।

বােরখা পরা কট্টর মুসলিম দেশগুলিতে কি প্রেম নেই? ছাই চাপা আগুনকে কেউ কি চাপা দিতে পেরেছে? আফগানিস্থানে উপজাতি এলাকায় যুবকেরা পছন্দের পাত্রীর বাড়ির সামনে। আকাশে বেশ কয়েকবার গুলি ছুড়ে তার হৃদয়ের বার্তা প্রকাশ করে। আরবে প্রেমিককে সে দেশের মেয়েরা ‘আনা বেহিবাক’ আর ছেলেরা ‘আনা বেহিবেক’ বলে পরস্পরকে প্রেম নিবেদন করে। তুরস্কে ‘সেনি সােভিয়ােরাম’ হল ভালােবাসার বার্তা। ইরানে বলে ‘মাহ্ন দুস্তাহত দ্রোহ্রাহম। পাকিস্তানে ‘মুঝে তুমসে মহত হ্যায়’ উর্দু কথাটি অচেনা নয়।

articleRead

You can read up to 3 premium stories before you subscribe to Magzter GOLD

Log in, if you are already a subscriber

GoldLogo

Get unlimited access to thousands of curated premium stories and 5,000+ magazines

READ THE ENTIRE ISSUE

February 22, 2020