নিরাময়ের পথে?

ANANDALOK|February 12, 2020

নিরাময়ের পথে?
সমকামী বা LGBTQ কমিউনিটিকে একটা সময় অবধি শ্লেষ বা মশকরার ছলে দেখিয়েছে বলিউড। কিন্তু চাকা বােধহয় ঘুরছে...‘হােমােফোবিয়া' রােগে আক্রান্ত ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি এবার কি নিরাময়ের পথে? লিখছেন অংশুমিত্রা দত্ত

ঈষৎ নারীসুলভ কোনও পুরুষকে লাঞ্ছনা করা তাে স্কুল-কলেজে বা রাস্তাঘাটে কতই দেখা যায়, তাই না? তবে ‘ভদ্রসমাজ’তা তারিয়ে-তারিয়ে উপভােগ করলেও নিজেরা সেরকম কিছু করে শিক্ষা বা রুচি বড় বালাই যে। কিন্তু সেসবই যখন সেলুলয়েডের পরদায় ‘ইয়ার্কি’র ছলে। দেখানাে হয়, তখন বােধহয় ভদ্রতার আগলটা। খসে পড়ে। তাই ‘কল হাে না হাে’র মতাে একটি ছবিতে সেফ এবং শাহরুখের ইঙ্গিতপূর্ণ দৃশ্যের সুড়সুড়িতে পরিচারিকা ‘কান্তা’র হােমােফোবিক রিঅ্যাকশনে দর্শকের হাসি পায়। সমকামীদের স্টিরিয়ােটাইপে বেঁধে দিলে দর্শকেরও। আপত্তি থাকে না। কারণ তাঁরাও দিনের শেষে হােমােফোবিক! হােমােফোবিয়া দূর করতে । বিচারব্যবস্থা সমকামিতাকে ডিক্রিমিনালাইজ করল ঠিকই, কিন্তু তার ফলে মানুষের মনে। কোনও পরিবর্তন হল কি? সমাজের মানসিকতা পরিবর্তন করতে চলচ্চিত্রের একটা বড় ভূমিকা। থাকে। স্টিরিয়ােটাইপের বাইরে বেরিয়ে ভিন্নকামী মানুষের ‘সুস্থ স্বাভাবিক সম্পর্ককে বিনােদনের মধ্যে নিয়ে এলে মানুষের মনও উপলব্ধি করতে শুরু করে তার ভুলগুলাে। বলিউডেও সেটা শুরু হয়েছে। এতদিন পর বলিউড এবার হয়তাে সাবালকত্বের দিকে এগােচ্ছে, বেশ দ্রুতগতিতে।

অন্ধকার অতীত...

একটা সময় ছিল, যখন ক্রস ড্রেসার, নারীসুলভ পুরুষ বা বৃহন্নলা’দের। একটি নেতিবাচক লেন্সে বন্দি করত বলিউড। মনে করে দেখুন ‘সড়ক’ ছবিতে ‘মহারানি’ চরিত্রটিকে। সদাশিব । আম্রপুরকর অসাধারণ দক্ষতায় অভিনয় করেছিলেন। ট্রান্সজেন্ডার মহারানির চরিত্রে। কিন্তু ছবিতে সেই চরিত্রটি একজন হাড় হিম করা খলনায়কের। অর্থাৎ নেতিবাচক মানুষ সে। অতএব কারও আপত্তিকর মনে হয়নি। কারণ সেটাই তাে । ‘স্বাভাবিক’!‘সড়ক’ বক্সঅফিসের আনুকূল্য পেয়েছিল, বলাই বাহুল্য।

articleRead

You can read upto 3 premium stories before you subscribe to Magzter GOLD

Log-in, if you are already a subscriber

GoldLogo

Get unlimited access to thousands of curated premium stories and 5,000+ magazines

READ THE ENTIRE ISSUE

February 12, 2020